ডোমেইন, সিকিউরিটি

ডোমেইনের প্রাইভেসি প্রোটেকশন বলতে কি বোঝায়?

Privacy protection

ডোমেইনের প্রাইভেসি প্রোটেকশন বোঝার পূর্বে জানা দরকার ‘প্রাইভেসি‘ কি? প্রাইভেসি (Privacy) শব্দটির অর্থ ‘গোপনীয়তা‘। এই গোপনীয়তা ব্যক্তির বিভিন্ন ‘ব্যক্তিগত‘ তথ্য বা বিষয়াদি সম্বন্ধে বোঝানো হয়ে থাকে।

প্রাইভেসি প্রোটেকশন কি?

অন্যদিকে ব্যক্তির ‘ব্যক্তিগত‘ তথ্য বা বিষয়াদিগুলোকে সুরক্ষিত করাকে ‘প্রাইভেসি প্রোটেকশন‘ (Privacy Protection) বা ‘বাক্তিগত তথ্য সুরক্ষা‘ বলা হয়।

প্রাইভেসি প্রোটেকশন কেন জরুরী?

ইন্টারনেটে বিভিন্ন সার্ভিস ক্রয়ের সময় জনসাধারণকে নিজেদের পরিচয় প্রমাণের জন্যে ব্যক্তিগত তথ্য যেমন নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার, জাতীয়তা ইত্যাদি দিতে হয়। যেসব তথ্য বেহাত (অন্য হাত) হয়ে গেলে বা অপরিচিত প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ যাদের নিকট থেকে কোন সার্ভিস ক্রয় করা হয়নি তাদের নিকট চলে গেলে তারা এই সব তথ্য এমন কোন কাজে ব্যবহার করতে পারে যা প্রকৃত ব্যক্তির জন্যে সামাজিক ও আইনগতভাবে জটিলতার সৃষ্টি করতে পারে। এই জন্যে ইন্টারনেটে কোন সার্ভিস ক্রয়ের পূর্বে বিক্রয়কারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ‘প্রাইভেসি পলিসি‘ বা ‘গোপনীয়তা নীতিমালা‘ জেনে নেয়া কর্তব্য।

ডোমেইনের প্রাইভেসি প্রোকেটশন বলতে কি বোঝায়?

ডোমেইনের ক্ষেত্রে বিষয়টি একটু ভিন্ন। কারন ‘Whois‘ (হু ইজ) লুকআপের (Lookup) এর মাধ্যমে খুব সহজে যে কেউই জেনে নিতে পারেন ডোমেইন রেজিস্টারকারীর নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার, জাতীয়তা ইত্যাদি, যদি না তাতে Whois বা ‘প্রাইভেসি প্রোটেকশন‘ এনাবল বা সচল করা থাকে। উদাহরনস্বরুপ ই-কমার্স হোস্টে (Ecommerce Host)-এ আপনি একটি হোস্টিং কেনার সময় যে নাম ঠিকানা দিয়ে একাউন্ট খুলেছেন তা ই-কমার্স হোস্ট কারো কাছে হস্তান্তর না করলে কেউই তা জানতে পারবে না, কিন্তু ই-কমার্স হোস্টে আপনি একটি ডোমেইন কেনার সময় যে নাম ঠিকানা ব্যবহার করেছেন তা whois.com এর মতো যেকোন Who is (হু ইজ) লুকআপ ওয়েবসাইটে ডোমেইনের নামটি লিখে সার্চ দিলে আপনার সেই নাম ঠিকানা হুবুহু প্রদর্শন করা হবে

Whois লুকআপ কি?

Whois লুকআপ হলো ডোমেইন মালিকের নাম-পরিচয় জেনে নেয়ার একটি মাধ্যম। ইন্টারনেটে অনেক ওয়েবসাইট এই সার্ভিসটি ফ্রি দিয়ে থাকে তার মধ্যে ডোমেইন নিয়ন্ত্রণকারি সংস্থা ICANN অন্যতম।

অন্যদিকে যদি আপনার ডোমেইনে প্রাইভেসি প্রোটেকশন এনাবল বা সচল করা থাকে তাহলে Whois লুকআপে আপনার নাম-ঠিকানা প্রদর্শিত না হয়ে সেখানে ডোমেইনটির রেজিস্টারার কোম্পানীর নাম-ঠিকানা প্রদর্শন করা হবে। ফলে আপনার ব্যক্তিগত তথ্যসমূহ সুরক্ষিত অবস্থায় থাকল। এটাকেই ডোমেইনের প্রাইভেসি প্রোকেটশন বলা হয়।

যেহেতু বিষয়টি খুব গুত্বপূর্ণ তাই নতুন ডোমেইন রেজিস্টার বা ক্রয় করার সময় জেনে নেয়া দরকার যে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নিকট থেকে তা ক্রয় করছেন তারা আপনাকে ডোমেইনের প্রাইভেসি প্রোটেকশন সার্ভিসটি দিচ্ছেন কিনা এবং তার মূল্য কত। উল্লেখ্য যে, প্রায় সব ডোমেইন রেজস্টারারগণই প্রাইভেসি প্রোটেকেশন সার্ভিস দিয়ে থাকেন কিন্তু সবাই তা বিনামূল্যে দেন না। আপনি চাইলে এই লিংক থেকে থেকে বিনামূল্যে প্রাইভেসি প্রোটেকশনসহ ডোমেইন রেজিস্টার/ক্রয় করতে পারবেন, আর ই-কমার্স হোস্টের প্রাইভেসি পলিসি জেনে নিতে পারবেন এই লিংক থেকে।